বৃহস্পতিবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

কমলনগরে অধ্যক্ষ পুত্রকে কর্মচারী পদে নিয়োগের অপচেষ্টার অভিযোগ : সংঘর্ষের আশংকা

 

নুরুল আমিন ভূঁইয়া দুলাল নিজস্ব প্রতিবেদক
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে ফরাশগন্জ ফয়েজে আম আলিম মাদ্রাসায় অফিস সহকারি কাম হিসাব সহকারি পদে একই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ পুত্রকে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার অপচেষ্টা চলছে। এদিকে এ নিয়োগকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ও এলাকাবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে। জানা গেছে, পরীক্ষার সময়, ক্ষণ কিছুই জানেন না খোদ ওই প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির সভাপতি এবং কমিটির অন্য সদস্যরা। মাদ্রাসা প্রধানের পুত্রকে নিয়োগ দিতে যত গোপনীয়তার আশ্রয় নেয়ার অভিযোগ করেন স্থানীয়রা।

প্রতিষ্ঠানের সভাপতি মাহবুবুর ইসলাম দোলন ও কমিটির সদস্য মাওলানা মো.সোলাইমান বলেন, মাদ্রাসা প্রধান মাওলানা মো.শাহাজান হঠাৎ নিয়োগ পরীক্ষার দিন ধার্য করেন (৩রা নভেম্বর) রোজ শ্রক্রবার। তবে পরীক্ষা কখন কোন সময় হবে এমন কোন তথ্য নির্ধারণ করেননি। তিনি সম্পূর্ণ গোপনীয়তার ভিত্তিতে নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন অভিযোগ করেন।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মাওলানা মো.শাহজাহান সম্পূর্ণ গোপনীয় ভাবে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি না পেয়ে স্থানীয় আগ্রহী প্রার্থীরা সময় মত আবেদন করতে পারেননি।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কমিটির এক সদস্য বলেন, বিজ্ঞপ্তি কোন পত্রিকায় এবং কোন তারিখে প্রকাশ হয়েছে তা জানতে চাইলে এর আগে তাও জানাননি অধ্যক্ষ। ফলে স্থানীয় প্রার্থীরা সঠিক সময়ে আবেদন করতে পারেননি। অধ্যক্ষপুত্রের সহ ৪ টি আবেদনের সবগুলোই স্থানীয় এলাকার বাইরের।
সূত্রে আরও জানা যায়, মাদ্রাসা অধ্যক্ষ তার ছেলে মো.মাহমুদুল হাসানকে উক্ত পদে নিয়োগ দিবেন মর্মে অন্য ৩টি ডামি প্রার্থীর আবেদন জমা করেন। নিজ পুত্রকে নিয়োগ পেয়ে দিতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ থেকে শুরু করে নিয়োগ প্রক্রিয়ার সবকিছু অতি গোপনীয়তায় সম্পন্ন করে চলেছেন অধ্যক্ষ মো.শাহজাহান এমন অভিযোগ করেন ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। তারা এ নিয়োগ কার্যক্রম বন্ধে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মাওলানা মো. শাহজাহান বলেন, বিধিমোতাবেক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে, প্রার্থীরা আবেদন করেছেন, নিয়োগ প্রক্রিয়ার সকল কার্যক্রম নিয়োগ বিধিমোতাবেক এগিয়ে চলেছে। অনিয়মের কিছুই দেখছি না।
মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সভাপতি মো.মাহবুবল ইসলাম দোলন বলেন, অধ্যক্ষ সাহেব নিয়োগ পরীক্ষা (৩রা নভেম্বর) রোজ শুক্রবার নির্ধারণ করে আমাকে জানান। তবে দিনের কোন সময় হবে এমন কিছুই বলেননি। তবে, আমার জানা মতে, বিধি মোতাবেক নিয়োগ কার্যক্রম চলমান।
এদিকে নিয়োগ বোর্ডের সদস্য ডিজি প্রতিনিধি বোর্ডের পরিদর্শক লিপি সরকারের সঙ্গে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

দেশ জার্নাল বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----