সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

কমলনগরে জলাবদ্ধতায় আটকে আছে মুক্তিযোদ্ধা পরিবার৷, ২০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

 

নুরুল আমিন ভূঁইয়া দুলাল নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে গত কয়েক দিনের বিরতিহীন বৃষ্টিতে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারসহ কয়েকটি পরিবার পানিতে তলিয়ে আছে।
গত কয়েকদিন যাবত দুর্ভোগের শিকার ভুক্তভোগী ওই পরিবার।
এতে স্হানীয়দের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
স্হানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের লরেন্স বাজার বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম মোহসিন মাস্টার ও কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক রেবেকা মহসিনের বাড়িটির পাশে নতুন ভূমি অফিস তাদের জায়গা নিয়ে বাউন্ডারি ওয়াল করায় এসমস্যার অন্যতম কারণ।
এখানে চারটি হিন্দু পরিবার ও একটি প্রাইভেট মাদ্রাসা এ জলাবদ্ধতার শিকার হন। এটা দুঃখ জনক।
ভুক্তভোগী পরিবার গৌরাঙ্গ বাবু, রঞ্জদাস ও মাদ্রাসা প্রধান আলআমিন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, উপজেলা ভূমি অফিস আমাদের পানিনিষ্কানের পথবন্ধ করে বাউন্ডারি ওয়াল করায় জলাবদ্ধতায় আটকে আছি। জনপ্রতিনিধিসহ কেউ আমাদের খোঁজ খবর নেয়নি।

কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহসীন মাস্টারের স্ত্রী ( সাবেক বৃহত্তর রামগতি উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক) আলহাজ্ব রেবেকা মহসিন জানান, গত তিন বছর আগে আমার মালিকীয় দখলীয় ভূমির উপর দিয়ে ভূমি অফিসের বাউন্ডারি ওয়াল করে। এতে আমিসহ আরও কয়েকটি পরিবার জলাবদ্ধতায় ১০/১৫ লাখ টাকার ক্ষতির শিকার। এছাড়া ২০০৯ সালে প্রায় ৫ লাখ টাকা মূল্যে আমার নির্মিত একটি পানিনিষ্কাশের পাকা ড্রেনের উপর দিয়ে ভূমি অফিস তাদের নতুন বাউন্ডারি টানে।
উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ফেরদৌস আরা বলেন, আমাদের বাউন্ডারির কারহে কোন পরিবারের সমস্যা হয়েছে, এরকম বিষয় কেউ আমাকে জানাইনি। প্রকৃতভাবে সরকারের জায়গাতেই বাউন্ডারি ওয়াল নির্মিত হয়ছে। এতে কারও সমস্যা হওয়ার কথা নহে।

দেশ জার্নাল বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----