সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

নিখোঁজের ২৫ বছর পর সোনামিয়া ফিরে পেলেন আপন ঠিকানা

 

নুরুল আমিন ভূঁইয়া দুলাল, নিজস্ব প্রতিবেদক

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের কল্যাণে নিখোঁজের ২৫ বছর পর আপন ঠিকানা ফিরে পেলেন সোনা মিয়া।
লক্ষ্মীপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের কল্যাণে প্রায় ২৫ বছর পর সোনা মিয়া (৬৫) নামে এক বৃদ্ধকে খুঁজে পেয়েছেন তার স্বজনরা। জানা যায় সোমবার (১৬ অক্টোবর) লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মিয়া বাড়ি এলাকা থেকে তাকে নিয়ে যান তার ছোট ভাই মোরশেদ আলম।
স্বজনদের কাছ থেকে জানা যায় এর আগে ১৯৯৮ সালে সোনা মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিটঘর ইউনিয়নের সিনামাছি গ্রামের বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি। তিনি একই এলাকার মৃত একরাম হোসেনের ছেলে। মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়ার কারণে তিনি পথভুলে আর বাড়ি ফিরে যেতে পারেননি।

জানা গেছে, ২০১৭ সালে কোনো একদিন সোনা মিয়া লক্ষ্মীপুর দারুল উলুম কামিল (আলিয়া) মাদরাসা এলাকায় একটি ফার্ণিচার দোকানের সামনে শুয়েছিলেন। তখন লক্ষ্মীপুর দারুল উলুম কামিল (আলিয়া) মাদ্রাসার সাবেক শিক্ষক সালাহ উদ্দিন তাকে নিজের সঙ্গে নিয়ে যান। এরপর থেকেই সোনা মিয়া তার কাছে ছিলেন বলে জানা যায় ।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সোনা মিয়ার ছোট ভাই মোরশেদ আলম বলেন, ২৫ বছর পর ভাইকে ফিরে পেয়েছি। ভাইয়ের চিন্তায় অসুস্থ হয়ে ৬ মাস আগে ভাবি শাহজাদা খাতুন মারা গেছেন। তার একমাত্র ছেলেটিও বাবার আদর থেকে দীর্ঘ ২৫ বছর বঞ্চিত ছিল। ফেসবুকে একটি পোস্টে তার ছবি দেখে আমরা তার সন্ধান পাই। পরে ফেসবুকে পোস্টকারী ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে ভাইকে নিতে এসেছি।
এব্যাপারে শিক্ষক মো. ফিরোজ আলম বলেন, সোনা মিয়ার ছবিসহ পরিবারের সন্ধান পেতে ফেসবুকে একটি পোস্ট করা হয়েছিল। ওই পোস্টটি আমিও শেয়ার করেছিলাম। ফেসবুকের কল্যাণে তার পরিবারের সন্ধান পাওয়া গেছে। তার ছোট ভাই মোরশেদ এসে তাকে বাড়ি নিয়ে গেছে।

লক্ষ্মীপুর দারুল উলুম কামিল (আলিয়া)
মাদরাসার সাবেক শিক্ষক সালাহ উদ্দিন এর কাছে নিখোঁজের ঘটনার সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রায় ৬ বছর সোনা মিয়া আমার কাছে ছিলেন। তাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য অনেকদিন ধরেই চেষ্টা করছি। এজন্য তাকে নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করি। অবশেষে তার ভাই এসে তাকে নিয়ে গেছেন। তিনি দীর্ঘ ২৫ বছরবাড়ি ছাড়া ছিলেন বলে জানতে পেরেছি। এখন সোনামিয়াকে পেয়ে স্বজনরা খুবই আনন্দিত ।

দেশ জার্নাল বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----