সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

নোয়াখালীতে সড়কের কার্পেটিং হাত দিয়ে তুলে ফেললেন এলাকাবাসী

 

মোঃজাহিদুল ইসলাম, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে আমকী-থানার হাট সড়ক সংস্কারে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে। ফলে সড়ক থেকে কার্পেটিং তুলে ফেললেন বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

জানা যায়, উপজেলার নোয়াখালী-চাটখিল মহাসড়ক থেকে আমকি হয়ে থানার হাট পর্যন্ত সড়কটি দীর্ঘদিন যাবত বেহাল অবস্থায় ছিল। গত বছরের নভেম্বর মাসে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কার্যাদেশ পায়। দুই কিলোমিটার রাস্তাটি ১ কোটি ৫২ লক্ষ টাকায় টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এম এম ট্রের্ডাস সংস্কারের কাজ পেয়ে শুরুতেই নিম্নমানের ইট, বালি দিয়ে শুরু করে। সড়কে নিম্নমানের সামগ্রী দেওয়ায় শুরু থেকেই এলাকাবাসী প্রতিবাদ করে আসছে। কয়েকবার সড়কের কাজ বন্ধ কওে দেওয়া হয়। কিন্তু ঠিকাদার ও উপজেলা প্রকৌশল অফিসের অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যায়। ১৫ই মে (বুধবার) সকালে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে সড়কের ঢালাইয়ের কিছু অংশের কার্পেটিং হাত দিয়ে টেনে টেনে তুলে ফেলে। সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

স্থানীয় মাহতলা গ্রামের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন অভিযোগ করে জানান, শুরুতেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন দলীয় প্রভাব খাটিয়ে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে সড়কের কাজ শুরু করে। কয়েকবার বাধা দেওয়ার পরেও তারা শোনেনি। ন্যুন্যতম বিটুমিন ও পাথর দিয়ে ঢালাই করলে তা এলাকাবাসী হাত দিয়ে টেনে টেনে তুলে ফেলেন। পরে স্থানীয়রা সড়কের কাজ বন্ধ করে দেয়।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এম এম ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী রনি জানান, সিডিউল অনুযায়ী সড়কের কাজ হচ্ছে তবে এলাকার লোকজন কয়েকবার বাধা দিয়েছে। আজকেও বাধা দেওয়ার পর সড়কের কাজ বন্ধ আছে।

উপজেলা প্রকৌশলী এমদাদুল হকের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানতে পেরেছি সড়কের পিচ ঢালায় হাত দিয়ে টেনে টেনে তুলছে।পরে ঠিকাদারের লোকজন নির্মাণ কাজ বন্ধ করে। তবে সিডিউল অনুযায়ী ও তাদের সার্বক্ষনিক তত্বাবধায়নে সড়কের কাজ চলছে। জেলার উর্ধতন কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টরা ১৫ই মে সরেজমিনে পরিদর্শন করে সড়কের নির্মাণ কাজে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

দেশ জার্নাল বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----