সোমবার, ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

রায়পুরে সহোদর ভাইকে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার

 

 

নুরুল আমিন ভূঁইয়া দুলাল , নিজস্ব প্রতিবেদক

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মো. সাইফুল আলম মৃধা (৬০) হত্যা মামলার প্রধান আসামি দেলোয়ার হোসেন মৃধাকে (৫০) গ্রেপ্তার করেছে রায়পুর থানা পুলিশ। সোমবার (২ অক্টোবর) রাত ১১টার দিকে তাঁকে ঢাকার সদরঘাট এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে রায়পুর থানা সূত্রে জানা গেছে।

খুনের প্রধান আসামিকে আটকের ঘটনায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রায়পুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কমল মালাকার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি আসামিকে নিয়ে রায়পুর উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন বলেও জানান।

উল্লেখ্য গত শনিবার রাত ৮টার দিকে জমি সংক্রান্ত বিরোধে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছোট ভাই দেলোয়ার হোসেন মৃধ্যার ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাথায় মারাত্মক আঘাতের কারণে তাকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য যাওয়ার পথে মারা যান আহত মো. সাইফুল আলম মৃধা।

ওইদিন বিকেল থেকেই শুরু হওয়া জমি নিয়ে বিরোধে ছোট ভাই দেলোয়ার হোসেন মৃধা ও তাঁর লোকজনের হাতে হামলায় তিনি গুরুতর আহত হন বলে পরিবারের সদস্যদের অভিযোগের ভিত্তিতে জানা যায় । মৃত সাইফুল আলম উপজেলার বামনী ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের কবিরহাট সংলগ্ন মৃধা বাড়ির মৃত সাইদুর রহমান মৃধার ছেলে।

এই ঘটনার পরদিন গত রোববার দুপুরে নিহতের স্ত্রী নাছিমা বেগম (৫০) বাদী হয়ে রায়পুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় দেলোয়ার হোসেন মৃধা (৫০), শিমুল সাংবাদিক (২৮), আব্দুল মতিন (৫৯), নাজমুন নাহার নাজমা (৪৫), আবু মুসা মোহন সাংবাদিক (৩৫), নিশু আক্তার (৩৫), মো. বাশার মাষ্টার (৬৫), রেশমা আক্তার (৩০) ও সুইটি বেগমসহ (৪৫) নয় জনকে আসামি করা হয়। এর আগে এজাহারভুক্ত নিশু আক্তার ও সুইটি বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রায়পুরে জমি নিয়ে বিরোধে বড় ভাইকে হত্যার অভিযোগরায়পুরে জমি নিয়ে বিরোধে বড় ভাইকে হত্যার অভিযোগ
উল্লেখ্য, প্রধান আসামি দেলোয়ার হোসেন মৃধা একটি জাতীয় দৈনিকের রায়পুর উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত। রায়পুর উপজেলা ব্যাপি চিল তার ব্যাপক চাঁদাবাজির অভিযোগ। এই কারণেই রায়পুর উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটিতে তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়। এবং তাকে গ্রেফতার করার জন্য রায়পুর থানাকে তৎকালীন রায়পুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আলম নির্দেশ প্রদান করে।

অপর আসামি শিমুল হোসেন (চতুর্থ শ্রেণী) পাস একটি পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ও আবু মুসা মোহন (সপ্তম শ্রেণী পাস) আরেকটি দৈনিকের রায়পুর উপজেলা প্রতিনিধি।

আটক ও হত্যার ঘটনায় রায়পুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সামসুল আরেফিন বলেন, ‘এজাহারভুক্ত প্রধান আসামিসহ এ পর্যন্ত তিন জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে জোর তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে আশা করি সকল সকল আসামীদের গ্রেফতারের সক্ষম হব।

দেশ জার্নাল বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----