বৃহস্পতিবার, ২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

হামাসের নতুন যুদ্ধবিরতির  প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান: নেতানিয়াহুর

 

দেশ জার্নাল ডেস্কঃ

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের দেয়া নতুন যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে প্রত্যাখ্যান করেন, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

শুক্রবার (১৫ মিার্চ) ইসরাইলি সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইসরায়েল জানিয়েছে, হামাসের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব নিয়ে যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভার সঙ্গে বৈঠক করেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। বৈঠক শেষে তিনি বলেন, হামাসের এই নতুন প্রস্তাব ‘এখনও অযৌক্তিক।’

তবে যুদ্ধবিরতি প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে ইসরাইলি প্রতিনিধিদের কাতারে পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন নেতানিয়াহু। এরআগেও একাধিকবার হামাসের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে ইসরাইল।

এক বিবৃতিতে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রীর দফতর জানিয়েছে, নেতানিয়াহু সেনাদের রাফাহতে হামলা চালানোর পরিকল্পনাকে সমর্থন দিয়েছেন।

বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর দফতর বলেছে, ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বাহিনী রাফাহতে হামলা চালানোর জন্য এবং সেখানকার বেসামরিক বাসিন্দাদের সরিয়ে নিতে প্রস্তুত রয়েছে।

এরআগে মধ্যস্থতাকারী দেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের কাছে যুদ্ধবিরতির জন্য একটি নতুন প্রস্তাব পেশ করে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। প্রস্তাবে প্রথম দফায় নারী, শিশু ও বৃদ্ধ জিম্মিদের ছাড়ার বিনিময়ে ৭০০ থেকে ১০০০ ফিলিস্তিনি বন্দির মুক্তি চেয়েছে হামাস। এর মধ্যে প্রায় ১০০ জন যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত।

প্রতিবেদন মতে, নতুন প্রস্তাবে হামাস বলেছে, ইসরাইলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা যদি গাজায় ছয় সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করে এবং ইসরাইলের বিভিন্ন কারাগারে বন্দি ফিলিস্তিনিদের মধ্যে থেকে ৭০০ থেকে ১০০০ জনকে মুক্তি দেয়; তাহলে জিম্মিদের মধ্যে থেকে নারী, শিশু, বয়স্ক এবং অসুস্থদের ছেড়ে দেবে তারা।

প্রস্তাবে আরও বলা হয়, যদি এই যুদ্ধবিরতি সফল হয়, তাহলে উভয়পক্ষ স্থায়ী যুদ্ধবিরতির আলোচনা শুরু করবে।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনের সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস ইসরাইলে হামলা চালিয়ে ১ হাজার ২০০ জনকে হত্যা ও দুই শতাধিক ব্যক্তিকে জিম্মি করে। এ ঘটনার পর গাজায় সামরিক অভিযান শুরু করে ইসরাইল। তাদের হামলায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৩১ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে ৭২ হাজার ১৯৮ জন।

দেশ জার্নাল / সো আ (সূ– আঃ অনলাইন)

দেশ জার্নাল বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো মন্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো।

----- সংশ্লিষ্ট সংবাদ -----